সাতক্ষীরা জমে গেছে ইউপি নির্বাচন তালায় নজরুল ইসলাম,জালালপুরে লিটুর দখলে

জেলা প্রতিনিধি সাতক্ষীরা:-
  • Update Time : Sunday, March 14, 2021
  • 235 Time View

তালা সদর ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি সাংবাদিক এসএম নজরুল ইসলাম প্রায় শতাধিক মটর সাইকেল নিয়ে গনসংযোগে করেছেন।
রবিবার বিকালে ইউনিয়নের বিভিন্ন হাট-বাজার, মহল্লা-পাড়া অলিগলিতে গনসংযোগ করেন। গনসংযোগকালে জাতীয় পার্টি,জাতীয় যুব সংহতি,জাতীয় ছাত্র সমাজ,জাতীয় তরুন পার্টি,জাতীয় সেচ্ছাসেবকপার্টি,জাতীয় শ্রমিক পার্টিসহ সকল অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা ও এলাকার সাধারণ মানুষ অংশ নেন।
জানাযায়,সাংবাদিক এসএম নজরুল ইসলাম চেয়ারম্যান থাকাকালীন তালা সদর ইউনিয়নকে মডেল হিসেবে আত্মপ্রকাশ করান।কিন্তু বর্তমান চেয়ারম্যান সেটি ধরে রাখার তো দূরের কথা এলাকায় দৃশ্যমান কোন প্রকারের উন্নায়ন দেখাতে পারেনি।বর্তমান চেয়ারম্যানের ও তার পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে নানান রকমের অভিযোগ রয়েছে। তারা তালা সদরে সন্ত্রার্সী কর্মকান্ড কায়েম করছেন। যাহার কারনে বর্তমান চেয়ারম্যান সরদার জাকিরের ভাই সরদার মশিয়ার কে উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদকের পদ হতে বহিসষ্কার করেন জেলা আওয়ামীলীগ।
সাবেক চেয়ারম্যান সাংবাদিক নজরুল ইসলাম বলেন, তালা সদর ইউনিয়ন কে জবাবদিহি মূলক প্রাদেশিক সরকার ব্যবস্থা ও সচ্ছতা ভিত্তিতে সকল উন্নয়ন কর্মকান্ড পরিচালনা করতে আমাকে ভোট দিন। উন্নয়ন ও সুশাসন ফিরিয়ে আনতে লাঙ্গল মার্কায় ভোট দিন।
এদিকে, মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন জালালপুরের জনপ্রিয় ইউপি চেয়ারম্যান এম মফিদুল হক লিটু।রোববার (১৪ মার্চ) দুপুরে দায়িত্বপ্রাপ্ত রিটার্নিং কর্মকর্তা ও উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা নাজমুন নাহারের কাছে তিনি এ মনোনয়নপত্র জমা দেন।
প্রকাশ, লিটু জালালপুর ইউনিয়নের পরপর দু,বার চেয়ারম্যান হিসেবে অকল্পনীয় উন্নয়ন করেছেন।গতবার ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকা প্রতিকের প্রার্থী মুক্তিকে বিপুল ভোটের ব্যাবধানে হারিয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন।
মনোনয়ন জমা দেয়ার পর চেয়ারম্যান এম মফিদুল হক লিটু বলেন, আমি আশা রাখি সুষ্ঠ ও সুন্দর নির্বাচন হলে ইনশাআল্লাহ আমি আবারো জয়লাভ করবো। আগামী ইউপি নির্বাচনে আমি আপনাদের কাছে দোয়া ও ভোট প্রার্থী।
উল্লেখ্য যে, ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী আগামী ১১ এপ্রিল অনুষ্ঠিতব্য মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ তারিখ ১৮ মার্চ, মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই ১৯ মার্চ এবং প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ২৪ মার্চ।

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category

ভোলার ইলিশা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে তিনদিন আটক ১৩ টি মহিষ ও দুইটি গরু।
গরু মহিষ নিয়ে বিপাকে পড়েছে পুলিশ, রয়েছে খাবার সংকট।
বুধবার দিবাগত রাত সাড়ে ৩ টায় ইলিশা ফাঁড়ির পুলিশ একটি ট্রাকসহ ফেরিঘাট থেকে আটক করেন।
মহিষের সাথে থাকা নুরে আলম নামের একজন কে কোর্টে প্রেরণ করেছে পুলিশ।
পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার ও পটুয়াখালীর সিমানার চরে একটি হত্যাকান্ড সংঘটিত হয়। ওই ঘটনায় হত্যা হওয়া নুরু শেখের ছেলে একটি মামলা করেন ওই মামলায় শাজাহান গোলদার নামে একজন কে আসামী করা হয়।
মামলার পর থেকে শাহাজান গোলদার পলাতক থাকায় এই সুযোগে পটুয়াখালীর গলাচিপা ও ভোলার চরফ্যাশন সিমানার চর থেকে ১৩টি মহিষ ও দুইটি গরু লুট করে লালমোহনের এক ব্যাপারীর কাছে বিক্রি করেন আলী নামের এক লোক। ওই মহিষ ও গরু ইলিশাঘাট দিয়ে পাচারের কথা শুনে মহিষের মালিক পক্ষ ইলিশ ফাঁড়ি পুলিশের মাধ্যমে আটক করেন।
বর্তমানে মহিষের মালিক শাহাজান গোলদারের স্ত্রী জরিনা ও ভাই ফিরোজ তাদের মহিষ ও গরু সনাক্ত করলেও আইনী জটিলতায় পুলিশ মহিষ ও গরু আটক করে ফাঁড়িতে রেখেছেন।
এদিকে এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত পাচারকারীদের পক্ষে বিভিন্ন রাজনৈতিক নেতারা তদবির করতে দেখা গেছে ইলিশা ফাঁড়িতে।
শাহাজান গোলদারের স্ত্রী জরিনা বেগম বলেন, নির্ধারিত রাখাল ছাড়া মহিষের দেখাশোনা করা সম্ভব না এবং ১৩ টা মহিষের খাবার ইচ্ছে করলেই সংগ্রহ করা সম্ভব না, বাচ্চা মহিষগুলো মারা যেতে পারে। জরিনা আরো জানান মহিষগুলো লুট হারিয়ে যাওয়ার পর আমরা একাদিকবার দুলারহাট ও গলাচিপা থানায় জিডি করতে গেলে পুলিশ আমাদের জিডি নেইনি আর সেই জিডি না থাকায় আমরা মহিষ সনাক্ত করলেও পুলিশ মহিষ দিচ্ছে না।
এবিষয়ে দুলারহাট থানার ওসি মুরাদ হোসেন বলেন মহিষ হারিয়েছে বিষয়টি আমি অবগত তবে আমাদের এড়িয়াতে না হওয়ায় জিডি নিতে পারিনি।
ইলিশা ফাঁড়ির ইনচার্জ আলী আজম বলেন, গরু মহিষগুলো আমরা কোর্টে পাঠাবো, কোর্ট যেই সিদ্ধান্ত নিবে সেটাই হবে।

ভোলায় মহিষপাল নিয়ে তেলেসমাতি