সাতক্ষীরায় বোর রোপনে লক্ষমাত্রা ছাড়াবে আম্পার ফলনের সম্ভাবনা

বি এম বাবলুর রহমান সাতক্ষীরা
  • Update Time : Monday, February 15, 2021
  • 90 Time View

তালায় বোর রোপনে সবুজের আল্পনা,,মাঠজুড়ে সবুজের সমারোহ লক্ষমাত্রা ছাড়াবে এবছর ধানচাষে, অন্য বছরের তুলনায় এবার মাঠজুড়ে ধানচাষ ব্যাপক বৃদ্ধি পেয়েছে।

বছরজুড়ে মহামারী করোনায় গেলবার বোরো আবাদে কিছুটা বিঘ্ন হয়েছিল। গত বছরের ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে বোরো জমি ছাড়া এবার কৃষকরা আউশ ও আমন খেতেও আবাদে ব্যস্ত হয়ে পড়ছেন।এবার তালায় বোরোর ফলন লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে যাবে। উপজেলার কয়েকটি ইউনিয়ন ঘুরে এ চিত্র দেখা যায়। তালা উপজেলায় এ বছর ১৯ হাজার ৫শত ৪০ হেক্টর জমি বোরো আবাদের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হলেও এর পরিমাণ ছাড়িয়ে যেতে পারে বলে ধারণা করছে উপজেলা কৃষি বিভাগ।

মাঘের শুরুতেই বোরো আবাদের কাজে মাঠে নেমে পড়েছেন কৃষকেরা। ফসলের ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে কুয়াশাচ্ছন্ন শীতের সকালেই মাঠজুড়ে কৃষকরা বোরোর জন্য নির্ধারিত জমি ছাড়াও অনাবাদি হিসেবে পরিচিত আউশ ও আমন জমিতেও বোরোর চারা রোপণ করছেন। মাঠে মাঠে এখন বোরো ধানের সমরহ, কাকডাকা ভোর থেকে শুরু করে সন্ধ্যা পর্যন্ত অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন তাঁরা। কৃষকেরা বললেন, দীর্ঘদিন ধানের ন্যায্যমূল্য না পাওয়ার পর এবার আমনের দাম অনেকটা ভালোই পেয়েছি। সেই আশায় উৎসাহ-উদ্দীপনায় ফের বোরো আবাদ শুরু করেছি।

তালার বিভিন্ন গ্রামে ঘুরে দেখা যায়, শীতের তীব্রতা উপেক্ষা করে মাঠে মাঠে চলছে ধানের জমি পরিচর্যার কাজ চলছে। কার ধান কেমন ভালো হয় তা নিয়ে চলছে রীতিমতো প্রতিযোগিতা নিম্নাঞ্চলের কৃষকদের মধ্যে।

তালা উপসহকারি কৃষি কর্মকর্তারা বলছেন, কয়েক দিনের টানা শৈত্যপ্রবাহ হলে ও আবহাওয়া কুয়াশাচ্ছন্ন থাকলে রবি ফসলও ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। চাষাবাদে তাই বাড়তি যত্ন নেওয়া ও সতর্ক থাকা জরুরি। তীব্র শীতের কবল থেকে বোরো ধানের অবাদ রক্ষায় কৃষকদের জন্য পরামর্শ দিয়েছে, উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর।

এলাকায় একাধিক কৃষকদের কাছ থেকে জানা গেছে এবার অন্য বছরের তুলনায় তাদের ফসলের অবস্থা অনেকটা ভালো মনে হয় এবছর খুব ভালো ধান ঘরে তুলতে পারবো।তালা সদরের ভায়ড়া গ্রামের সফল চাষী মোঃ রহমত আলী গোলদার, আগোলঝাড়া গ্রামের শাহাবুদ্দিন শেখ,আটারোই গ্রামের মোঃ হোসেন আলি মোড়ল,রিজাউল ইসলাম,ডাংগানলতা গ্রামের আবুল গফফার হাওলাদার, তাছাড়া মির্জাপুর গ্রামের নজরুল ইসলাম, ইসলামকাটী গ্রামের শহিদুল ইসলাম খাঁ,মুড়াগাছা গ্রামের মোহাম্মদ আলী সরদার বলেন আমারা এবার সহয় সম্বল দিয়ে বোর ধানের আবাদ করেছি এখন পর্যন্ত আমাদের ধানের অবস্থা অনেকটা ভালো চলতি বছরের আবহাওয়া ভালো থাকলে গত বছরের ক্ষতি পুষিয়ে যাবে এবং আমাদের সোনার ফসল বাড়িতে আনতে পারবো। আমাদের চাহিদার মেটাতে পারবো বাড়তি আরো বিক্রি করতে পারবো ।

তালা উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার মধ্যে সবচেয়ে বেশি বোরো আবাদ হয় উপজেলা সদরে জেলায় এ বছর ১৯ হাজার ৫শত ৪০ হেক্টর জমিতে বেরো আবাদ করা হয়েছে। তালা উপজেলা কৃষি উপসহকারী পরিমল কুমার বিশ্বাস বলেন বীজতলা থেকে শুরু করে ধানখেতে বোরো আবাদ ভাল হয়েছে। এখনো পর্যন্ত বড় ধরণের কোনো সমস্যা দেখা দেয়নি। শীতে যদিও ছোট্টখাট্ট সমস্যা দেখা দিয়ে থাকে তা কৃষকদের পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।তাছাড়া কৃষকদের মাঝে সার বীজ সরকারি ভাবে ফ্রি প্রদান করেছি, ধানচাষের উপর কৃষকদের প্রশিক্ষণ প্রদান করেছি। আশা করি এ বছর বোরো আবাদ ভাল হবে, সঙ্গে কৃষকেরাও পাবে অধিক পরিমাণ ধান। সেই সঙ্গে লক্ষ্যমাত্রা যা ধরা হয়েছে তা ছাড়িয়ে যাবে।

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category