ভোটে জিতে প্রতিপক্ষের কর্মী ও সমর্থকের ঘরে হামলা, ভাংচুর,লুটপাটের ঘটনায় গ্রেফতার ৪ জন।।

বাউফল (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি
  • Update Time : Monday, November 15, 2021
  • 30 Time View

বাউফল প্রতিনিধি।।
পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলার নওমালা ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে জিতে পরাজিত প্রতিপক্ষের কর্মী ও সমর্থকের ঘরে হামলা,ভাংচুর,লুটপাট ও আসবাবপত্রে আগুন দেয়ার ঘটনায় পুলিশ চার জনকে গ্রেফতার করেছে। হামলা ও লুটপাটের ঘটনায় মোসাঃ সেতারা বেগম বাদী হয়ে রবিবার রাতে ২৭ জনকে বিবাদী করে মামলা করলে বিজয়ী চেয়ারম্যান এ্যাডভোকেট কামাল হোসেন বিশ্বাসের কর্মী বটকাজল গ্রামের মোঃ মঞ্জু খান (৫৩), নওমালা গ্রামের মোঃ করিম হাওলাদার (৩৬),বটকাজল গ্রামের মোঃ ইউনুচ মৃধা (৩৫) ও নিজ বটকাজল গ্রামের মোঃ রবিউল ইসলাম (১৯) কে রবিবার (১৪ নভেম্বর) রাতে গ্রেফতার করে বাউফল থানা পুলিশ।উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার (১১ নভেম্বর) অনুষ্ঠিত বাউফল উপজেলার নওমালা ইউপি নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী এ্যাডভোকেট কামাল হোসেন বিশ্বাস বিজয়ী হন। স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী (ঘোড়া) বর্তমান চেয়ারম্যান মো. শাহজাদা হাওলাদার পরাজিত হন।রবিবার (১৪ নভেম্বর) সন্ধ্যার দিকে নৌকা প্রতীকের কর্মী-সমর্থকেরা পরাজিত প্রার্থীর কর্মী মো. বেল্লাল হোসেনের (২৮) নগরের হাট এলাকার ঘরে ঢুকে টিভি, ফ্রিজ, শোয়ার খাটসহ বিপুল পরিমাণ আসবাব ভাংচুর করেন। এরপর সেগুলো এক জায়গায় স্তুপ করে পেট্রল দিয়ে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়। পরে স্থানীয় লোকজন পানি ঢেলে আগুন নেভাতে সক্ষম হন। হামলা,ভাঙচুর,লুটপাট ও আগুন দেয়ার ঘটনায় পরাজিত প্রাথী মোঃ শাহজাদা হাওলাদারের কর্মী মোঃ বেল্লাল হোসেনের মা মোসাঃ সেতারা বেগম ২৭ জনকে বিবাদী করে বাউফল থানায় অপরাধ বিগ্ন কারী দ্রুত বিচার আইন ৪
ও ৫ ধারায় মামলা করেন।বাউফল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ আল মামুন বলেন, ভাংচুরের
ঘটনায় মামলা হয়েছে। ঘটনার সাথে জড়িত থাকায় চার জনকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। অন্যদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category