তরুণ নেতাদের বিশ্বতালিকায় মাশরাফি

ক্রীড়া প্রতিবেদক :
  • Update Time : Friday, March 12, 2021
  • 35 Time View

বাংলাদেশের সফল ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মোর্ত্তজা। এখন অবশ্য তিনি আর অধিনায়ক নন; গত বছর নেতৃত্বকে বিদায় জানিয়েছেন। তবে খেলাটা চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন। খেলোয়াড় পরিচয়ের পাশাপাশি মাশরাফির আরও একটি পরিচয় আছে- তিনি সংসদ সদস্যও। তার নিজ নির্বাচনী এলাকা নড়াইল-২ আসনে উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডে ভূমিকা রাখার জন্য তরুণ নেতাদের বিশ্ব তালিকায় স্থান পেয়েছেন।

২০২১ সালে বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদান রাখার জন্য ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরাম ১১২ জন ‘ইয়াং গ্লোবাল লিডার্স’ বেছে নিয়েছে। দক্ষিণ এশিয়া থেকে নির্বাচিত ১০ জনের একজন মাশরাফি বিন মোর্ত্তজা। বাকি ৯ জন হলেন- অদিতি আওয়াস্থি (ভারত), শ্রীকান্ত বোল্লা (ভারত), মালেকা বোখারি (পাকিস্তান), নির্ভানা চৌধুরী (নেপাল), গাজাল কালরা (ভারত), শ্রীভার খেরুকা (ভারত), আমেয়া প্রভু (ভারত), হৃদয় রবীন্দ্রনাথ (ভারত) এবং হিতেশ বাধওয়া (ভারত)।

প্রসঙ্গত মাশরাফির আগে ২০১৬ সালে ইয়াং গ্লোবাল লিডার হিসেবে দক্ষিণ এশিয়া থেকে নির্বাচিত হয়েছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

প্রতিবছর রাজনীতি, শিক্ষা, বাণিজ্য, গণমাধ্যম এবং কলায় বিশেষ অর্জন আর অবদান রাখা তরুণ ব্যক্তিত্বদের ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরামের পক্ষ থেকে এ সম্মাননা দেওয়া হয়। এ ক্ষেত্রে শর্ত একটিই- তাদের বয়স হতে হবে ৪০-র নিচে। ৩৭ বছর বয়সী মাশরাফি এবার সেই স্বীকৃতি পেলেন।

ইয়াং গ্লোবাল লিডার্স লিখেছে- ‘মাশরাফি বিন মোর্ত্তজা বাংলাদেশের একজন ক্রিকেটার ও বাংলাদেশের ওয়ানডে দলের সাবেক অধিনায়ক। তিনি টি-টোয়েন্টি দলেরও অধিনায়ক ছিলেন। মাশরাফি তিনটি বড় আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টের ফাইনালে বাংলাদেশ দলকে নেতৃত্ব দিয়েছেন। ক্রিকেটের বাইরে তিনি বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে নিজ শহর নড়াইলের মানুষের দারিদ্র্য দূর করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছেন। ছয়টি গুরুত্বপূর্ণ লক্ষ্য অর্জনের ভাবনা থেকে তিনি নড়াইল এক্সপ্রেস ফাউন্ডেশনও প্রতিষ্ঠা করেন।

লক্ষ্যগুলো হলো- নাগরিকদের জন্য আধুনিক সুযোগ-সুবিধা ও বিশেষ শিক্ষাব্যবস্থা নিশ্চিত করা, তরুণদের কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করা, খেলোয়াড় তৈরি করা, সাংস্কৃতিক কার্যক্রম বৃদ্ধি করা, চিত্রা নদীতে পর্যটনকেন্দ্র স্থাপন এবং নড়াইলকে তথ্যপ্রযুক্তি ও পরিবেশবান্ধব শহরে রূপান্তর করা।
২০১৭ সালে শ্রীলংকা সফরে গিয়ে মাশরাফি টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটকে গুডবাই জানান। গত বছরের মার্চে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে হোম সিরিজে তিনি ওয়ানডের নেতৃত্ব ছেড়ে দেওয়ার ঘোষণা দেন, তবে খেলাটা নিয়মিত চালিয়ে যাবেন বলে জানান। তবে করোনাপরবর্তী ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজের জন্য যে প্রাথমিক দল ঘোষণা করেছিল বিসিবি, সেখানে জায়গা পাননি মাশরাফি।

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category